জয় করেও ফিরলেন না!ট্রেকিং করতে গিয়ে মর্মান্তিক পরিণতি, কাঞ্চনজঙ্ঘার কোলে শ্বাসকষ্টে মৃত্যু হাওড়ার দেবব্রতর


শঙ্খ ভট্টাচাৰ্য :- ট্রেকিং করতে ভালবাসতেন,এর আগেও অনেকবার পাহাড়ে গেছেন | এবছর কাঞ্চনজঙ্ঘা বেস ক্যাম্প ট্রেকিং করতে গেছিলেন | কিন্তু গন্তব্যে পৌঁছেও সঙ্গ দিল না শরীর| শ্বাসকষ্টে মৃত্যু হল হাওড়ার বালির সমবায়পল্লির এলাকার দেবব্রত বরের | ৪৬ বছরের দেবব্রত ১১ সদস্যের একটি দলের সঙ্গে কাঞ্চনজঙ্ঘা বেস ক্যাম্প গোয়েচালায় গিয়েছিলেন | গত ১৭ মে তিনি কাঞ্চনজঙ্ঘা বেস ক্যাম্প ট্রেকিংয়ের উদ্দেশে বেরিয়েছিলেন| দেবব্রতবাবুর সঙ্গে আরও ১১জন সহযাত্রী ছিলেন| মৃতের পরিবারের দাবি, ১৯ মে দেবব্রতবাবুর সঙ্গে তাঁদের কথা হয়েছিল | এরপরে উচ্চতার কারণে টাওয়ার না থাকায় ফোন বন্ধ করে রেখেছিলেন দেবব্রত | তাই পরিবারের লোকজনও তাঁর সঙ্গে এর মধ্যে যোগাযোগ করতে পারেননি | জানা গিয়েছে, গত ২৫ মে নির্দৃষ্ট গন্তব্যেও পৌঁছেও যান তিনি | তবে কাঞ্জনজঙ্ঘার উচ্চতা স্পর্শ করার পর ফিরে আসার পথে অসুস্থ বোধ করেন তিনি | তাঁর শ্বাসকষ্ট শুরু হয় | এরপর চিকিৎসার জন্য তাঁকে নামিয়ে আনার চেষ্টা করা হয় | কিন্তু, তার আগেই মৃত্যু হয় তাঁর |

বালির বাড়িতে তাঁর মৃত্যুর খবর পৌঁছতে শোকস্তব্ধ হয়ে পড়ে গোটা পরিবার | দেবব্রতবাবুর পরিবারে বৃদ্ধা মা, স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে রয়েছে| তিনি ছিলেন একমাত্র রোজগেরে | তাঁর অকাল মৃত্যুতে অথৈ জলে পড়ল গোটা পরিবার | স্থানীয়রা বলছেন, পাহাড় ছিল দেবব্রতবাবু ধ্যান জ্ঞান | ট্রেকিং ছিল তাঁর নেশা| এমন কোনও ঘটনা ঘটে যেতে পারে সেটা তাঁরা কল্পনাই করতে পারছেন না | শোকে পাথর দেবব্রতর প্রবীণ মা | ছেলে বেড়াতে যেতে বরাবর ভালোবাসে | বিভিন্ন জায়গা ঘুরে বেড়িয়েছে সে| কিন্তু, কখনও ছেলে গুরুতর অসুস্থ হয়ে গিয়েছে বলে মনে করছে পারছেন না এই প্রবীণা | কান্না জড়়ানো গলায় তাঁর স্বগোক্তি, ‘ছেলেটা আমার হারিয়ে গেল!’ দ্রুত যাতে দেহ নিয়ে আসার ব্যবস্থা করা হয় সেই জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চাইছে পরিবার | সূত্রের খবর, দেহ দ্রুত আনার জন্য যাবতীয় পদক্ষেপ করা হয়েছে প্রশাসনের তরফে |


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

one × four =