মহিলাকে জড়িয়ে ধরে চুমু খাওয়ার খেসারত দিতে হল ভোটের ডিউটিতে আসা জওয়ানকে!অভিযুক্ত জওয়ানকে ভোট প্রক্রিয়া থেকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন


শঙ্খ ভট্টাচাৰ্য :- ভোটের ডিউটিতে কাজে এসেছিলেন বিএসএফ জওয়ান | অভিযোগ, আচমকাই ওই মহিলাকে জড়িয়ে ধরে চুমু খান জওয়ান | উলুবেড়িয়ার কুলগাছিয়ায় ঘটা এই অভিযোগ নির্বাচন কমিশনে জানায় তৃণমূল| আর তারপরই নড়েচড়ে বসে কমিশন | খেসারত দিতে হল ওই জওয়ানকে | জোর করে চুমু খাওয়ার অভিযোগ ওঠায় বিএসএফ জওয়ানকে কর্তব্য থেকে সরিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন| আপাতত তাঁকে ভোটের কোনও কাজে রাখা যাবে না বলে কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে | ওই জওয়ানের বিরুদ্ধে উলুবেড়িয়া থানায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছে | ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ | বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক মহলে বেশ চাপানউতোর শুরু হয়েছে | কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানের এহেন কীর্তিতে ফুঁসে উঠেছে তৃণমূল | বিজেপির দাবি, জওয়ানদের মানহানির চেষ্টা করছে শাসকদল |

ঘটনার সূত্রপাত রবিবার সকালে |সোমবার উলুবেড়িয়া লোকসভা কেন্দ্রের ভোটের জন্য আগেই সেখানে এসেছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী | পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার সকাল ছটা নাগাদ কুলগাছিয়ার ওই তরুণী হাঁটতে বেরন | সেই সময় বিএসএফের দুই জওয়ান ওই এলাকায় ছিলেন অভিযোগ, যুবতীকে একা দেখতে পেয়ে অশ্লীল ইঙ্গিত ও কুপ্রস্তাব দেন দুই জওয়ান | যুবতীর দাবি, তিনি ঘটনার প্রতিবাদ করলে এক জওয়ান জোর করে জড়িয়ে ধরেন ও চুমু খান | তিনি আতঙ্কে চিৎকার করলে ছুটে আসেন গ্রামবাসীরা | অভিযুক্ত বিএসএফ জওয়ানকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন তাঁরা | অন্য জওয়ান ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান বলে জানিয়েছেন গ্রামবাসীরা | খবর যায় উলুবেড়িয়া থানায় | অভিযুক্ত বিএসএফ জওয়ানকে আটক করে থানায় নিয়ে যান পুলিশ কর্তারা | পরবর্তীতে তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয় | এই ঘটনার রিপোর্ট পৌঁছয় নির্বাচন কমিশনে | অভিযোগ খতিয়ে দেখে সোমবার সকালে কমিশন সিদ্ধান্ত নেয় যে ওই জওয়ানকে ভোটের কোনও কাজে রাখা যাবে না | সেইমতো জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে নির্দেশ দেওয়া হয় এরপরই ওই জওয়ানের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে উলুবেড়িয়া থানার পুলিশ | এদিকে, এই ঘটনার জেরে এলাকার মহিলারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন | তাঁদের আশ্বস্ত করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ভোটের দিন মহিলাদের নিরাপত্তার মধ্যে দিয়েই ভোটাধিকার প্রয়োগের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে|আর এই ঘটনায় তুঙ্গে রাজনৈতিক তরজা | বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “দেখতে হবে ওই মহিলা তৃণমূলের দ্বারা প্ররোচিত কিনা ওই মহিলা তৃণমূল করে কিনা সেটাও দেখতে হবে, রাজ্যপালের ঘটনা যেরকম সাজানো সেই রকমই মনে হচ্ছে এটাও, যদি এই রকম সত্যি হয়ে থাকে তাহলে অভিযুক্তর কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত |” রাজ্যের মন্ত্রী শশী পাঁজা বলেন,”ভোটের আগে ভয়ের পরিবেশ তৈরি করছে কেন্দ্রীয় বাহিনী | বাংলার মহিলাদের সম্ভ্রম নিয়ে বিজেপি প্রতিনিয়ত খেলছে | ২০২১ শীতলকুচিতে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ভোটারদের মেরে ফেলা হয়েছিল| বনগাঁ গিয়ে আমরা দেখেছি বিএসএফ মহিলাদের ওপর কি অত্যাচার করে | বিজেপি শান্তিপূর্ণ ভোট চায় না |”


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

17 + 16 =